1. admin@gonoray24.com : admin :
সুনামগঞ্জে গৃহবধূকে বার বার ধর্ষণের চেষ্টা বিচারের দাবিতে মানববন্ধন « গণরায়
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ১১:৫৩ অপরাহ্ন
সর্বশেষ
৩৬ লাখ ২৫ হাজার দরিদ্র পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেবে সরকার -কাদের বাংলাদেশে প্রতি ১৫ মিনিটে ১ জনের মৃত্যু হচ্ছে করোনা আক্রন্ত হয়ে করোনার ইতিহাসে এখন পর্যন্ত ভারতে সর্বোচ্চ শনাক্ত মাওলানা মামুনুল হককে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ-ডিবি দক্ষিণ কোরিয়ার ভিসা পাবেনা বাংলাদেশীরা রাজশাহীতে ড্রামের ভেতর থেকে অজ্ঞাত নারীর লাশ উদ্ধার এদেশের গণতন্ত্রকে হত্যা এবং দুর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছিলো বিএনপি -কাদের করোনা আক্রান্ত খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে লাইফ সাপোর্টে কবরী সারোয়ার ফুডপান্ডা রাইডারকে পিটিয়ে ভাইরাল সাভার বণপুকুর এলাকার স্থানীয় এক ব্যাক্তি

সুনামগঞ্জে গৃহবধূকে বার বার ধর্ষণের চেষ্টা বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

অনলাইন নিউজ ডেক্স :
  • প্রকাশিত : রবিবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২০
  • ৬৮ বার পড়া হয়েছে

সুনামগঞ্জের শাল্লায় দিনমজুর পরিবারের এক গৃহবধূকে একাধিকবার ধর্ষণের চেষ্টা করেছেন স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী পরিবারের এক বখাটে। ওই নারীর পরিবারের লোকজন থানায় একাধিকবার লিখিত অভিযোগ দিলেও পুলিশ মামলা হিসেবে নেয়নি।

অবশেষে শনিবার (২৮ নভেম্বর) দুপুরে বাধ্য হয়ে বিচারের দাবিতে সুনামগঞ্জ জেলা শহরের শহীদ মিনারে এসে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মানববন্ধন করেছেন এক অসহায় দিনমজুর স্বামী। তিনি সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার বাসিন্দা। মানববন্ধনে ধর্ষণচেষ্টার বিচার চেয়ে হাউমাউ করে কান্নায় ভেঙে পড়েন দিনমজুর। এ সময় তার স্ত্রী, বৃদ্ধা মা ও দুই শিশুসন্তান সঙ্গে ছিলেন।

তাদের বুকফাটা কান্নায় শহীদ মিনারে উপস্থিত সবার চোখে জল নামে। এসময় সুনামগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নারী নির্যাতনকারী বখাটে ও সহযোগীদের বিচার চায় অসহায় পরিবারটি।

মানববন্ধনে দিনমজুর বলেন, উপজেলার আনন্দপুর গ্রামের মধুদাসের ছেলে প্রজেশ দাস আমার স্ত্রীকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছে। বাড়ি থেকে বের হলেই স্ত্রীকে অশ্লীল কথাবার্তা বলে প্রজেশ দাস। গত বুধবার (১৮ নভেম্বর) বিকেলে মদ খেয়ে আমার স্ত্রীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে সে। এ ঘটনায় আমার স্ত্রী শাল্লা থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়। পরে আবার গত শনিবার (২১ নভেম্বর) রাতে ঘরে ঢুকে স্ত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় প্রজেশ।

এ সময় আমার স্ত্রী ও বাবা-মা জেগে চিৎকার শুরু করলে প্রজেশ দাস পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় রোববার (২২ নভেম্বর) আবারও থানায় লিখিত অভিযোগ দেই।

দিনমজুর আরও বলেন, সর্বশেষ অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থলে আসেন শাল্লা থানা পুলিশের এসআই সেলিম মিয়া। তিনি তদন্তে এসে আমাকে আপসের কথা বলে যান। আমি আপস না মেনে বিচার চাই। পরে ইউপি সদস্যকে নিয়ে থানায় যাই মামলা করতে। সেখানে ওসির সামনে আমাদের গালিগালাজ করেন এসআই সেলিম মিয়া। মামলা না নিয়ে আমাদের বাড়ি পাঠিয়ে দেয় পুলিশ।

এ বিষয়ে শাল্লা থানার ওসি নাজমুল হক বলেন, আমি ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছিলাম। ঘটনার সত্যতা না পাওয়ায় মামলা নেয়া হয়নি। তবে বাদীর আবেদনের প্রেক্ষিতে আরেকজন অফিসারকে দিয়ে তদন্ত করিয়ে ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছি। এর আগেই সুনামগঞ্জে গিয়ে মানববন্ধন করেছেন ওই দিনমজুর।

https://www.facebook.com/gonoray24

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ সম্পর্কিত আরও খবর

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বেআইনী।

Desing BY Mutasim Billa