1. admin@gonoray24.com : admin :
“শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু” স্থান পেতে যাচ্ছে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে « গণরায়
সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ১২:২৫ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
৩৬ লাখ ২৫ হাজার দরিদ্র পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেবে সরকার -কাদের বাংলাদেশে প্রতি ১৫ মিনিটে ১ জনের মৃত্যু হচ্ছে করোনা আক্রন্ত হয়ে করোনার ইতিহাসে এখন পর্যন্ত ভারতে সর্বোচ্চ শনাক্ত মাওলানা মামুনুল হককে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ-ডিবি দক্ষিণ কোরিয়ার ভিসা পাবেনা বাংলাদেশীরা রাজশাহীতে ড্রামের ভেতর থেকে অজ্ঞাত নারীর লাশ উদ্ধার এদেশের গণতন্ত্রকে হত্যা এবং দুর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছিলো বিএনপি -কাদের করোনা আক্রান্ত খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে লাইফ সাপোর্টে কবরী সারোয়ার ফুডপান্ডা রাইডারকে পিটিয়ে ভাইরাল সাভার বণপুকুর এলাকার স্থানীয় এক ব্যাক্তি

“শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু” স্থান পেতে যাচ্ছে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে

গণরায় ডেস্ক নিউজ
  • প্রকাশিত : বুধবার, ১০ মার্চ, ২০২১
  • ১৮৭৮ বার পড়া হয়েছে

ধানখেতে ফুটিয়ে তোলা ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’ পরিদর্শন করেছেন গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের প্রতিনিধিদল। মঙ্গলবার বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় ১০০ বিঘা আয়তনের এ ধানখেত পরিদর্শন শেষে প্রতিনিধিদলের সদস্যরা জানিয়েছেন,

শস্যখেতের বিশাল ‘ক্যানভাসে’ ফুটিয়ে তোলা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নান্দনিক প্রতিকৃতিটি বিশ্ব রেকর্ড গড়তে যাচ্ছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের স্বীকৃতি মিলবে।

গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের বাংলাদেশের প্রতিনিধিদলের দুই সদস্য হলেন শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক কামাল উদ্দিন আহাম্মদ এবং বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যাথলজি বিভাগের অধ্যাপক এমদাদুল হক চৌধুরী।

তারা মঙ্গলবার বগুড়ার শেরপুরে আমিনপুর মাঠে প্রতিকৃতি স্থল পরিদর্শন শেষে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে বর্তমানে চীনের ৭০ বিঘার শস্যচিত্রের রেকর্ড ভাঙার ব্যাপারে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

অধ্যাপক এমদাদুল হক চৌধুরী বলেন, তারা পরিদর্শনের সময় কয়েকটি বিষয় গুরুত্ব দেন। এর মধ্যে শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি বা ক্রপ ফিল্ড মোজাইকে কী পরিমাণ কাজ হয়েছে, সেটি গুরুত্ব দিচ্ছেন।

এ ছাড়া গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম লেখাতে দুই রঙের শস্য দিয়ে প্রতিকৃতি ফুটিয়ে তুলতে হয়। আমিনপুর মাঠে সবুজ ও বেগুনি রঙের শস্য দিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।

গিনেস বুকে নাম লেখাতে শস্যের রং অবশ্যই প্রাকতিক হতে হয়, আমিনপুর মাঠের দুই ধরনের শস্যের রংই প্রাকৃতিক পাওয়া গেছে। তিনি বলেন, গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে সব কটি শর্তই এখানে পরিপূর্ণভাবে মানা হয়েছে। ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের সনদ প্রদানের ক্ষেত্রে যা যা দরকার, সবই আছে এখানে।

https://www.facebook.com/gonoray24

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

এ সম্পর্কিত আরও খবর

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বেআইনী।

Desing BY Mutasim Billa