Home / আইন ও আদালত / অবৈধ গ্যাস সিলিন্ডারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বিরোধী অভিযানে সিসিক

অবৈধ গ্যাস সিলিন্ডারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বিরোধী অভিযানে সিসিক

হাফিজুল ইসলাম লস্কর, সিলেট :

সিলেট নগরীতে যত্রতত্রভাবে গড়ে উঠেছে অবৈধ অক্সিজেন ও গ্যাস সিলিন্ডারের ব্যবসা। বাদ যায়নি আবাসকি এলাকাও। অনুমোদন ছাড়াই এসব গ্যাস ও অক্সিজেন সিলিন্ডারের দোকান খুলে বসায় বাড়ছে দুর্ঘটনার ঝুঁকি।

শুক্রবার (০৫ এপ্রিল’১৯) নগরীর বাগবাড়ি এলাকায় এমন একটি সিলিন্ডারের দোকানে বিস্ফোরণের পর নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন। শুক্রবার রাতেই সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, দ্রুতই অবৈধ ও ঝুঁকিপূর্ণ এ ব্যবসার বিরুদ্ধে অভিযান শুরু হবে।

সিলেট নগরীতে অবৈধভাবে গড়ে উঠা গ্যাস সিলিন্ডারের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধে অভিযান চালাবে সিলেট সিটি কর্পোরেশন। শনিবার দুপুরে নগর ভবনে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. ইউনুছুর রহমান।

এতে সিসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায় চৌধুরী, ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান, সিলেট প্রেসক্লাব সভাপতি ইকরামুল কবিরসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

মেয়র বলেন, ‘সিলেট নগরীতে যত্রতত্র গড়ে উঠেছে অবৈধ গ্যাস সিলিন্ডারের দোকান। সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোর অনুমতি ছাড়া ঝুঁকিপূর্ণভাবে বিক্রি হচ্ছে এসব গ্যাস সিলিন্ডার। ফলে প্রায়ই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে এসব দোকানের আশপাশের মার্কেট ও বিপনী বিতান। এছাড়া যেকোন সময় ঘটে যাওয়া দুর্ঘটনায় মানুষের প্রাণহানিরও শঙ্কা রয়েছে। এ অবস্থায় যথাযথ নিয়ম না মেনে চলা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবে সিটি কর্পোরেশন।’

সেই ঘোষনানুযায়ী সিলেট নগরীর অবৈধ অক্সিজেন ও গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অভিযানে নেমেছে সিলেট সিটি কর্পোরেশন (সিসিক)।

রবিবার (৭ এপ্রিল) সকাল ১০টা থেকে এ অভিযান নগরীর বন্দরবাজার এলাকা থেকে শুরু হয়েছে। এদিকে গতকাল শনিবার (০৬এপ্রিল’১৯) দুপুরে অভিযানে নামে জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসন পরিচালিত মোবাইল কোর্টে দক্ষিণ সুরমা উপজেলার মোমিন খোলা এলাকায় মেয়াদ উর্ত্তীণ ও নিদিষ্ট মাত্রার অতিরিক্ত গ্যাস সিলিন্ডার সংরক্ষণের অপরাধে ২টি প্রতিষ্ঠানকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন অনুযায়ী ৫হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মঈনুল হোসেন চৌধুরী বেলা ১২টায় এই মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন। এসময় তার সাথে ছিলেন বিস্ফোরক অধিদপ্তর ইন্সপেক্টর আলিম উদ্দিন।

প্রসঙ্গত, নগরীর বাগবাড়ি বর্ণমালা পয়েন্টে অক্সিজেন সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দুই সাংবাদিক আহত ও একটি সিএনজি অটোরিক্সা ক্ষতিগ্রস্ত হবার প্রেক্ষিতে সিসিকের পক্ষ থেকে এমন উদ্যোগ নেয়া হলো।



আপনার মতামত লিখুন

আপনার ‘ই-মেইল’ ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না, কিন্তু স্টার চিহিৃত ঘরগুলো পূরণ করতেই হবেতেই হবে *

*