Home / দেশের খবর / “পরিবর্তনে ভবানীপুর ” কার্যক্রমে ইতিবাচক সাড়া ফেলেছে

“পরিবর্তনে ভবানীপুর ” কার্যক্রমে ইতিবাচক সাড়া ফেলেছে

নওগাঁ প্রতিনিধি :

নওগাঁ পৌরসভার আওতায় ভবানীপুর গ্রামকে পরিবর্তনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। নওগাঁ মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিঃ “পরিবর্তনে ভবানীপুর”  নামে এই কার্যক্রমের আওতায় গ্রামকে নিরক্ষরমুক্ত ও স্ব-শিক্ষিত করে তোলা, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা, জনসাধারনের জন্য নিরাপদ পানি ও স্বাস্থ্য সম্মত পায়খানা নিশ্চিত করা, বেকার সমস্যার সমাধানের মাধ্যমে সকলকে স্বনির্ভর করে গড়ে তোলা, ভিক্ষুকমুক্ত, বাল্য বিবাহ ও যৌতুক মুক্ত সমাজ গড়ে তোলা, মাদকমুক্ত ও যে কোন ধরনের জুয়া বন্ধ করা, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ মুক্ত এলাকা হিসেবে গড়ে তোলা, ব্যপক বৃক্ষ রোপনের মাধ্যমে সবুজায়ন করে তোলা, সকলের জন্য কর্মসংস্থানের মাধ্যমে বেকার সমস্যা সমাধান এবং দারিদ্রতা দুর করে একট মর্যাদাশীল ভবানীপুর গ্রাম গড়ে তুলতে এসব কর্মসূচী হাতে নিয়েছে নওগাঁ মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটি।

ভবানীপুর গ্রামবাসীর সহযোগিতায় নওগাঁ মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটি’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম মাসুদ রানা এই পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন। তিনি ইতিমধ্যেই সমাজের উন্নয়নে এবং মানুষের কল্যানে যে কর্মসূচীগুলো বাস্তবায়ন করে চলেছেন এই কর্মসূচী তারই অংশ।

বাল্য বিবাহ ও যৌতুক মুক্ত সমাজ গড়তে ভবানীপুরসহ নওগাঁ সদর উপজেলার সব কয়টি ইউনিয়ন এবং পৌরসভায় জনসচেতনতা সৃষ্টি লক্ষে ব্যাপক কর্মসূচী হাতে নেয়া হয়েছে। গ্রামে গ্রামে মহল্লায় মহল্লায় সচেতনতামুলক উঠান বৈঠকের আয়োজন, স্কুলগুলোতে স্কুল ক্যাম্পেইন, এলাকার জনাকীর্ন স্থানসমুহে ব্যানার ও পোষ্টার স্থাপন এবং শিক্ষার্থী ও সাধারন জনগনের মধ্যে লিফলেট বিতরন কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

ভিক্ষুকমুক্ত ভবানীপুর গড়তে বিধবা ও স্বামী পরিত্যক্ত অসহায় মহিলাদের মাসিক ৬২৫ টাকা হারে ভাতা প্রদান কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এই কার্যক্রমের আওতায় এলাকার ১৫০ জন এমন মহিলাদের মাসে ৬২৫ টাকা হারে প্রতি দু’মাস পর পর একসাথে ১২৫০ টাকা করে প্রদান করা হয়ে থাকে। এতে প্রতিমাসে প্রয়োজন হয় ৯৩ হাজার ৭শ ৫০টাকা যার সমুদয় এই প্রতিষ্ঠান বহন করে থাকে। বেকার সমস্যার সমাধানে কুটিরশিল্প, বুটিক, বাটিকসহ নানা রকম হস্তশিল্পের প্রশিক্ষন এবং এখন থেকে উৎপাদিত কুটিরশিল্পজাত পণ্যসমূহ বাজারজাতকরনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এই কর্মসূচীতে কম পক্ষে ৩০ জন মহিলা ও কিশোরী এমন কি কলেজ পর্যায়ের শিক্ষার্থীরাও কাজ করছেন। তাদের প্রতি মাসে কমপক্ষে ৩ হাজার টাকা করে সন্মানী প্রদান করা হচ্ছে। এতে সংসারের বাড়তি আয় এবং শিক্ষার্থীদের পড়াশুনার খরচ সংকুলান হচ্ছে।

পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার ক্ষেত্রে ইতিমধ্যে বেশ কিছু জনবল নিয়োজিত করা হয়েছে। তারা প্রতিদিনি ভবানীপুর এলাকার সকল রাস্তাঘাট, উঠোন, পাড়া মহল্লার বিভিন্ন ফাঁকা জয়াগা এবং ড্রেন সমুহ ঝাড়ু দিয়ে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্ব পালন করছে।

এ ছাড়াও ভবানীপুর গ্রামের বিভিন্ন সড়ক এবং গলিপথ যেগুলো রয়েছে সেসব সড়ক ও গলির দু’পাশের গাছপালঅ, দন্ডায়মান খুঁটি রয়েছে সেসব রঙিন করা হয়েছে। এসব বৃক্ষরাজির গোড়া নির্দিষ্ট পরিমান সাদা রং করা হয়েছে এবং সাদা রঙের উপর বৃত্তাকারে লাল রং করা হয়েছে। যে কেউ এই গ্রামে প্রবেশ করলে ভালোলাগার এক মনোরম অনুভুতি অনুভব করবে।

এই কর্মসূচী শুরুর আগে জেলা প্রশাসকের সাথে নওগাঁ মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম মাসুদ রানার এক সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। জেলঅ প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান এবং জেলাপ সমবায় অফিসার মো. সেলিমুল আলম শাহিনের সার্বক্ষনিক পরামর্শ অনুযায়ী এই কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

ভবানীপুর গ্রামের বিশিষ্ট ব্যক্তি ইঞ্জিনিয়ার রেজাউল করিম এবং বিশিষ্ট সমাজসেবক শহিদুর রহমান শহিদ এই উদ্যোগের ভুয়শী প্রশংসা করে বলেছেন নওগাঁ মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটি ভবানীপুর এলাকায় ব্যপক উন্নয়নমুলক ও সচেতনতামুলক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে যা খুবই প্রশংসার দাবীদার।

জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান বলেছেন একটি সামাজিক সংগঠন ঐ এলাকার সামাজিক, অর্থনৈতিক, সাংস্কৃতিক পরিস্থিতির ব্যপক উন্নয়ন ঘটাতে পারে। নওগাঁ মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম মাসুদ রানা সেদিক থেকে অনুকরনীয় দুষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে।



আপনার মতামত লিখুন

আপনার ‘ই-মেইল’ ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না, কিন্তু স্টার চিহিৃত ঘরগুলো পূরণ করতেই হবেতেই হবে *

*