Home / অপরাধ / সাভারে রাসায়নিক কেমিক্যালে নারিকেলের নাড়ু, হুমকির মুখে শিশু স্বাস্থ্য

সাভারে রাসায়নিক কেমিক্যালে নারিকেলের নাড়ু, হুমকির মুখে শিশু স্বাস্থ্য

বিশেষ প্রতিনিধি :  (পর্ব-১)

নারিকেলের আঁশের মত দেখতে রাসায়নিক কেমিক্যালের তৈরি এক জাতীয় সাদা ফাইবার, সাথে সাভার নামা বাজারের নিন্মমানের ভেজাল গুড় আরো আছে দুধের ফ্লেবার, ফিটকিরি এবং দেয়ালে রং করার চুন, সেই সাথে নোংরা পরিবেশ এই দিয়েই তৈরি হচ্ছে, সুস্বাদু নারিকেলের নাড়ু।

উপকরণের নাম শুনেই অনুমান করা যায়, একজন মানুষের পাকস্থলির জন্য কতটুকু ঝুঁকিপূর্ণ এই নাড়ু, একবার ভাবুনতো, আপনার আদরের শিশুর পাকস্থলিতে যখন এই নাড়ু প্রবেশ করবে, কি অবস্থা হতে পারে?

গল্প নয়, বাস্তবেই এমন নাড়ু তৈরি হচ্ছে সাভারের হেমায়েতপুর এলাকার জহুরা ফুড প্রোডাক্টস্ নামের একটি কারখানায়। অনুমোদনহীন এই কারখানায়, বিরামহীন ভাবেই তৈরি করছে এইসব অস্বাস্থ্যকর ভেজাল খাবার।

বি.এস.টি.আই‘র অনুমোদনের বিষয়ে জানতে চাইলে, এই কারখানার স্বত্বাধিকারী মো. আসাদুল হক জানান, এই ধরনের ফুড প্রোডাক্টের জন্য কোন প্রকার অনুমোদন দেননা বিএসটিআই কর্তৃপক্ষ, তা্ই ইউনিয়ন পরিষদের ট্রেড লাইন্সেস দিয়েই চলছে তার এই নাড়ুর ব্যাবসা।

দুই কক্ষ বিশিষ্ট ছোট্র কারখানায় ব্যাবহার করা হচ্ছে ঝুঁকিপূর্ণ এলপিজি গ্যাসের একাধিক বোতল, নেই পযাপ্ত আলো বাতাসের ব্যাবস্থা, আবাসিক বিদুৎ সংযোগেই প্রায় ৭/৮ জন শিশু শ্রমিক দিয়ে চলছে বানিজ্যিক ভাবে নাড়ু তৈরির কাযক্রম।

এই নাড়ু‘র গুণগত মান সম্পর্কে জানতে চাইলে, কারখানার মালিক আসাদুল বলেন, প্রায় ছয় বছর ধরে আমি এই ভাবেই নাড়ু তৈরি করে আসতেছি কিন্তু কোথাও কোন অভিযোগ পাইনি।

তবে ভয়ংকর তথ্য দিলেন, বিশেষজ্ঞ পুষ্টিবিদগন তারা বলেন, এই ধরনের ভেজাল খাদ্য মানবদেহে ক্যানসারসহ নানাবিদ রোগের জন্ম দেয়। শিশুদের শাররিক বৃদ্ধিতে ব্যাপক ভাবে বাধার সৃষ্টি করে, এমন কি এইসব খাবার শিশুর শরিলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করে। এসব খাবার গ্রহন করে শিশুরা স্বাভাবিকতা হারাতে পারে বলে আশংকা করেন তারা।  

Avatar

Author: Kazi Biplop



আপনার মতামত লিখুন

আপনার ‘ই-মেইল’ ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না, কিন্তু স্টার চিহিৃত ঘরগুলো পূরণ করতেই হবেতেই হবে *

*