Home / দেশের খবর / আশুলিয়ায় সঙ্গবদ্ধ চোর চক্রের দুই সদস্যকে গণধোলাই

আশুলিয়ায় সঙ্গবদ্ধ চোর চক্রের দুই সদস্যকে গণধোলাই

নিজস্ব প্রতিনিধি :

আশুলিয়ার ইয়ারপুর ইউনিয়নে সঙ্গবদ্ধ চোর চক্রের দুই সদস্যকে গণধোলাই দিয়ে ছেড়ে দিয়েছে এলাকাবাসী।

শনিবার ভোরে ইয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন সোনামিয়া মার্কেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

চোরচক্ররা হলো স্থানীয় আবুল কসাইয়ের ভাগ্নে ও আঃ জলিলের ছেলে মাসুদ রানা(২৫) এবং বাইপাইল বুড়ীবাজার এলাকার ফাইজুদ্দিনের ছেলে আঃ করীম(২৬)। এরা দীর্ঘদিন ধরে এলাকার বিভিন্ন স্থানে কৌঁশলে বাসাবাড়ীতে চুরি করত। ফলে এলাকাবাসী এদের তান্ডবে অতিষ্ট হয়ে পড়ে।

স্থানীয়রা জানায়, এই চোর চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে এলাকার বিভিন্ন বাসাবাড়ী, দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের তালা ভেঙ্গে চুরী করে আসছিলো। এদেরকে ধরা যেতো না। শনিবার ভোরে সাদেক নামের এক ব্যবসায়ীর দোকানে চুরী করে পালানোর সময়ে লোকজন তাদের মধ্যে দু’জনকে ধরে ফেলে এবং বাকীরা পালিয়ে যায়।

এসএম ইন্টারন্যশনাল নামের একটি পোশাক কারখানার নিরাপত্তা রক্ষী মোঃ নজরুল ইসলাম জানায়, এ চোর চক্র আমাদের কারখানার তালা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করার চেষ্টা করছিল এমন সময় আমার উপস্থিতি টের পায় এবং আমাকে চাপাতি দিয়ে হামলার চেষ্টা করে পালিয়ে যায়। এর আগে চোরেরা কারখানার ব্যাটারী, ভ্যান ও মটরসহ বিভিন্ন মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়।

স্থানীয় সাদেক খাঁন জানায়, শনিবার ভোর রাতে এই দুইজনসহ অজ্ঞাত ৪-৫ জন সঙ্গবদ্ধ চোর মিলে আমার দোকানের তালা ভেঙ্গে ৫০ কার্টুন সিগারেট ও নগদ পচিশ হাজার টাকা চুরি করে পালানোর সময় জনতার হাতে ধরা পড়ে এবং বাকিরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। উত্তেজিত জনতা ধৃত চোরদের গণধোলাই দিয়ে ইয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ সৈয়দ আহম্মেদ মাষ্টার ও ৬নং ইউপি সদস্য মোঃ তাহের মৃধাকে জানিয়ে গ্রাম পুলিশের মাধ্যমে তাদের অভিভাবকদের কাছে হস্থান্তর করা হয়।



আপনার মতামত লিখুন

আপনার ‘ই-মেইল’ ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না, কিন্তু স্টার চিহিৃত ঘরগুলো পূরণ করতেই হবেতেই হবে *

*